সেপ্টেম্বর ২৬, ২০২২ ৭:৩২ অপরাহ্ণ || ডেইলিলাইভনিউজ২৪.কম

আবদুল কাদের মির্জা-জনপ্রিয় আঞ্চলিক জননেতা

আজকের নতুন প্রজন্মের কিছু তরুণদের কাছে তিনি বসুরহাট পৌরসভার বারবার নির্বাচিত মেয়র ও আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক সড়ক ও সেতুমন্ত্রী জনাব ওবায়দুল কাদের (এম পি) এর ছোট ভাই। কিন্তু বর্তমান প্রজন্মের অনেকেই জানে না মির্জা ভাই এর রাজনৈতিক জীবন ও ছাত্র রাজনীতি কত বিশাল ও বর্ণাঢ্য ছিলো। ছিলেন সরকারি মুজিব কলেজের নির্বাচিত ভি.পি। নিজ হাতে তৈরি করেছেন হাজার হাজার নেতাকর্মী। অনেক সংগ্রাম ও ত্যাগের ইতিহাস লুকিয়ে আছে মির্জা ভাই এর সমগ্র রাজনৈতিক জীবনে।
আজকের প্রজন্মের কাছে এগুলো মনে হবে রুপকথার গল্প।
উন্নয়নের কথা ৫/১০ বছর পরে মানুষ ভুলে যায়। কিন্তু কিছু কিছু বিষয় মানুষকে চিরস্মরণীয় করে রাখে। মির্জা ভাই কোম্পানীগঞ্জবাসীর কাছে চিরস্মরণীয় হয়ে থাকবেন কোম্পানীগঞ্জের রাজনীতিতে সহাবস্থানের জনক হিসেবে। গত ১০/১২ বছরে তিনি নিজকে এমন উচ্চতায় নিয়ে গেছেন বর্তমানে উনার প্রতিযোগিতা শুধু উনার নিজের সাথে।
প্রতিদিন তিনি নিজকেই ছাড়িয়ে যাচ্ছেন। এক সময়ের আওয়ামী লীগের অভিভাবক আজকে পুরো কোম্পানীগঞ্জবাসীর অভিভাবক। তিনি দল,মত নির্বিশেষে সবার নেতা, সবার মির্জা ভাই। উনার দরজা সবার জন্য সবসময় খোলা। নেতা হওয়া সহজ কিন্তু সত্যিকারের জননেতা হওয়া খুব কঠিন। মির্জা ভাই কেন্দ্রীয় নেতা নয়, জনপ্রিয় আঞ্চলিক নেতা। চট্টগ্রামের প্রয়াত মহিউদ্দিন চৌঃ ও সিলেটের প্রয়াত বদরউদ্দিন কামরান উনারাও কেন্দ্রীয় নেতা ছিলেন না, ছিলেন জনপ্রিয় আঞ্চলিক জননেতা। কিন্তু পরিচিতি ছিলো অনেক কেন্দ্রীয় নেতার চেয়েও বেশি।
মির্জা ভাইও বর্তমানে দেশের অন্যতম শীর্ষ জনপ্রিয় আঞ্চলিক জননেতা। মির্জা ভাই নির্বাচনে দাঁড়ালে সেটা আর নির্বাচন থাকে না হয়ে যায় নির্বাচনী উৎসব। বিপুল ভোটে জয়লাভটা গৌণ হয়ে যায়।
জনপ্রিয়তার পারদে উনার আজকের যে অবস্থান তাতে শুধু পৌর মেয়র নয়, আল্লাহ সুস্থ রাখলে আর তিনি ইচ্ছা পোষণ করলে যে কোন ধরনের নির্বাচনে বিপুল ভোটে জয়লাভ করবেন। করনার এই দূঃসময়ে তিনি প্রতিজ্ঞা করেছিলেন কোম্পানীগঞ্জের কাউকে অভুক্ত থাকতে দিবেন না এবং সেটা সফল ভাবে পালন করেছেন।
নিজের জীবনের ঝুঁকি নিয়ে অবিরাম ছুটে যাচ্ছেন গ্রামেগঞ্জে, হাটবাজারে, পাড়া মহল্লায়।
মানুষের মধ্যে করনার সচেতনতা ও চিকিৎসা সেবায় যে ব্যাক্তি উদ্যেগ নিয়েছেন তা দেশের অনেক জেলা সদরেও বিরল। আরেকটা বিষয় ইদানীং কোম্পানীগঞ্জবাসীর দৃস্টি কেড়ে নিয়েছে। পিতার পথ অনুসরণ করে মির্জা ভাই এর একমাত্র পুত্র সন্তান তাশিক মির্জা করোনার দুঃসময়ে অসহায় গরিব মানুষের পাশে খাদ্য ও চিকিৎসা সেবা নিয়ে দাঁড়িয়েছে সামর্থ্যের সবটুকু নিয়ে। আশা করি মির্জা ভাই এর সুযোগ্য সন্তান হিসেবে তাশিক মির্জাও দল,মত নির্বিশেষে পুরো কোম্পানীগঞ্জবাসী দোয়া ও ভালোবাসা অর্জন করবে।
-শাহাদাত সোহাগ-নোয়াখালী প্রতিনিধি

Comments

comments

সৈয়দা সাজেদা চৌধুরী আর নেই

আকবর আলি খান আর নেই

রানি দ্বিতীয় এলিজাবেথ আর নেই

Leave a Reply

Your email address will not be published.

error: Content is protected !!