জানুয়ারি ২৯, ২০২৩ ৭:০৫ অপরাহ্ণ || ডেইলিলাইভনিউজ২৪.কম

হঠাৎ মোদির ভিডিওতে ডিসলাইকের বন্যা!

একটা সময় সামাজিক মাধ্যমকে রীতিমতো নিজের মতো করে শাসন করেছিলেন নরেন্দ্র মোদি। কোনো কিছু পোস্ট কিংবা শেয়ারের পরই লাইক-কমেন্টের বন্যা। এবার সেই মোদিই দেখলেন মুদ্রার উল্টো পিঠ।

সংবাদ প্রতিদিন জানায়, ইউটিউবে আপলোড করা তার এক ভিডিওতে লাইকের চেয়ে ডিসলাইক পড়েছে প্রায় ৯ গুণ।

এক সময় ভারতের কোটি কোটি মানুষ শুনতেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির মনের কথা। রেডিও বা দূরদর্শন তো বটেই, সামাজিক মাধ্যমেও তুমুল জনপ্রিয় ছিল প্রধানমন্ত্রীর প্রিয় অনুষ্ঠান ‘মন কি বাত’।

সেই জনপ্রিয়তা কমার ইঙ্গিত অনেক দিন ধরেই মিলছিল। সামাজিক মাধ্যমে ‘মন কি বাত’ নিয়ে আলোচনাও কমছিল নিয়মিত। কিন্তু এবার যেটা হলো সেটা কল্পনার অতীত।

মোদির সাম্প্রতিকতম ‘মন কি বাত’ অনুষ্ঠানের ভিডিওতে লাইকের থেকে ডিসলাইক পড়ল অনেক বেশি। অর্থাৎ যত মানুষ এটিকে পছন্দ করেছেন, তার চেয়ে অনেক বেশি মানুষ অপছন্দ করেছেন। তাহলে কি এটা মোদির জনপ্রিয়তা কমার ইঙ্গিত?

রবিবার মোদির ‘মন কি বাত’ অনুষ্ঠান শেষ হওয়ার কিছুক্ষণ পরই ভিডিওটি ইউটিউবে আপলোড করা হয়। কিন্তু আপলোড হওয়ার পর থেকেই তাতে ডিসলাইকের বন্যা বইতে শুরু করে।

এই প্রতিবেদন লেখা পর্যন্ত ভিডিওটিতে আড়াই লাখের বেশি মানুষ ডিসলাইক করেছেন। আর লাইক করেছেন মোটে ২৯ হাজার মানুষ। অর্থাৎ অপছন্দকারীদের সংখ্যাটা পছন্দকারীদের প্রায় সাড়ে ৯ গুণ।

কিন্তু কেন এই ডিসলাইকের বন্যা? তাহলে কি মোদির জনপ্রিয়তা কমে গেল? রাজনৈতিক মহল বলছে, এর সঙ্গে মোদির সার্বিক জনপ্রিয়তার কোনো সম্পর্ক নেই।

আসলে করোনা আবহে এনইইটি, জিইই এবং কলেজ বিশ্ববিদ্যালয়ের চূড়ান্ত বর্ষের পরীক্ষা আয়োজনের সরকারি সিদ্ধান্ত ‘না পসন্দ’ শিক্ষার্থীদের। তাই প্রতিবাদের জন্য তারা ইউটিউবকে বেছে নিয়েছেন।

আসলে এনইইটি, জিইই এবং কলেজ বিশ্ববিদ্যালয়ের চূড়ান্ত বর্ষের পরীক্ষা নিয়েই ভারতের রাজনীতি এখন উত্তাল। করোনা আবহে এত বড় পরীক্ষা নেওয়া মানে পরীক্ষার্থীদের জীবন ঝুঁকির মধ্যে ফেলে দেওয়া।

এই অভিযোগ তুলে বিরোধী শিবির রীতিমতো সরকার পক্ষকে কাঠগড়ায় তুলছে। কিন্তু এসবের মধ্যে পরীক্ষা নিয়ে রবিবারের ‘মন কি বাতে’ একটি শব্দও খরচ করেননি প্রধানমন্ত্রী। আর তাতেই খেপেছেন শিক্ষার্থীরা। তাই ‘মন কি বাতে বাড়ছে’ ডিসলাইকের সংখ্যা।

Comments

comments

‘নির্বাচন সামনে রেখে পরগাছা গোষ্ঠীর তৎপরতা শুরু হয়েছে’

প্রাথমিকের জন্য ৭৮ কোটি টাকার বই কেনা হচ্ছে

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error: Content is protected !!