সেপ্টেম্বর ২৪, ২০২২ ১১:৪৫ অপরাহ্ণ || ডেইলিলাইভনিউজ২৪.কম

বেনাপোল বন্দর দিয়ে রফতানি শুরু

আন্দোলনের মুখে অবশেষে ১০৫ দিন পর বেনাপোল-পেট্রাপোল স্থলবন্দর দিয়ে ভারতে বাংলাদেশি পণ্য রফতানি শুরু হয়েছে। একই সঙ্গে পাঁচদিন বন্ধ থাকার পর স্বাভাবিক হলো আমদানি কার্যক্রম। প্রথম দিন রোববার (০৫ জুলাই) বিকেল সাড়ে ৫টায় পোশাক কারখানার পণ্য সামগ্রী নিয়ে পাঁচ বাংলাদেশি ট্রাক ভারতের পেট্রাপোল বন্দরে প্রবেশ করে। এর মধ্য দিয়ে রফতানি বাণিজ্য শুরু হয়। রোববার ভারত থেকে শুধু কাঁচামালের কয়েকটি ট্রাক বেনাপোল বন্দরে প্রবেশ করবে। আমদানি-রফতানি চালু হওয়ায় বেনাপোলসহ পেট্রাপোল বন্দরে কর্মচাঞ্চল্য ফিরে এসেছে।

বন্দর সূত্রে জানা গেছে, গত ২২ মার্চ থেকে করোনাভাইরাস সংক্রমণের কারণে বেনাপোল-পেট্রাপোল বন্দর দিয়ে আমদানি-রফতানি বন্ধ হয়ে যায়। পরে দফায় দফায় বৈঠকের পর পশ্চিমবঙ্গ রাজ্য সরকারের নির্দেশে ৭ জুন থেকে সীমান্ত বাণিজ্য সচল হয়। এরপর থেকে ভারতীয় পণ্য বাংলাদেশে আসছে। কিন্তু বাংলাদেশি কোনো পণ্যের চালান ভারতে রফতানি হয়নি।

বেনাপোলের বন্দর ব্যবহারকারীরা বলছেন, করোনা সংক্রমণের আশঙ্কায় ‘নিরাপত্তাজনিত কারণ দেখিয়ে ভারতীয়রা বাংলাদেশ থেকে কোনো রফতানি পণ্য গ্রহণ করেনি। ফলে আমদানি কার্যক্রম স্বাভাবিক থাকলেও ব্যাহত হচ্ছিল রফতানি। বাড়ছিল বাণিজ্য ঘাটতি। ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছিলেন এদেশের রফতানিকারকরা। বৈদেশিক আয় থেকে বঞ্চিত হচ্ছিল দেশ। বাধ্য হয়ে রফতানি পণ্য না নেয়ায় গত বুধবার (০১ জুলাই) সকাল থেকে বেনাপোল-পেট্রাপোল বন্দর দিয়ে রফতানিকারকরা এক হয়ে বন্ধ করে দেয় আমদানি বাণিজ্য কার্যক্রম।

এ নিয়ে তোলপাড় শুরু হয় খোদ পশ্চিবঙ্গ রাজ্য সরকারের দফতরে। ভারতীয় ব্যবসায়ীরা চান আমদানি হলে রফতানি হবে না কেন। শনিবার রাজ্য সরকারের এক জরুরি বৈঠকে রফতানির বিষয়টি নিয়ে ব্যাপক আলোচনা হয়। এরপর রফতানি চালুর নির্দেশ দিলে পেট্রাপোল বন্দর ও কাস্টমস কর্তৃপক্ষ রোববার বিকেল থেকে রফতানি পণ্য নিতে আগ্রহ দেখায়। এরই প্রেক্ষিতে রোববার পাঁচটি পোশাক কারখানার পণ্যবাহী বাংলাদেশি ট্রাককে পেট্রাপোল বন্দরে প্রবেশের অনুমতি দেয়া হয়। সময় স্বল্পতার কারণে এদিন বেশি ট্রাক পাঠানো যায়নি। তবে সোমবার সকাল থেকে দুই দেশের মধ্যে আমদানি-রফতানি স্বাভাবিকভাবে চলবে।

বেনাপোল সিঅ্যান্ডএফ এজেন্ট স্টাফ অ্যাসোসিয়েশনের সাধারণ সম্পাদক সাজেদুর রহমান বলেন, ভারতীয় বন্দর ব্যবহারকারী বিভিন্ন সংগঠনের সঙ্গে একাধিকবার আলোচনা করেও রফতানি চালু করা যায়নি। রফতানিকারকরা আমদানি কার্যক্রম বন্ধ করে দেয়ায় অবশেষে টনক নড়ে ভারতীয় প্রশাসনসহ বন্দর ব্যবহারকারীদের। ভারতীয় সরকারের সিদ্ধান্তের পর রোববার বিকেল সাড়ে ৫টার দিকে বেনাপোল বন্দর থেকে পাঁচ ট্রাক রফতানি পণ্য গ্রহণ করে ভারতীয় বন্দর কর্তৃপক্ষ। সেই সঙ্গে ওপারে যেসক পচনশীল পণ্য আটকে আছে সেগুলো গ্রহণ করা হবে।

Comments

comments

সৈয়দা সাজেদা চৌধুরী আর নেই

আকবর আলি খান আর নেই

রানি দ্বিতীয় এলিজাবেথ আর নেই

Leave a Reply

Your email address will not be published.

error: Content is protected !!